বুধবার, ১৯শে মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , চট্টগ্রাম ২৮.৩৯°সে

 সন্ত্রাসীর হাতে মারধরের শিকার চট্টগ্রামের চান্দগাঁও থানার বাসিন্দা নূর হোসেন ও তার পরিবার।

চট্টগ্রামের চাঁদগাও থানা এলাকাধীন ফরিদারপাড়া তালতলায় স্থানীয় নূর হোসেনের সুপরিবারে বসবাস।দীর্ঘদিন প্রবাসী প্রতিবেশী আবদুল মোবিন এর সাথে সম্পত্তির সীমানা সংক্রান্ত বিষয়ে নিয়ে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো নূর হোসেন ও তার পরিবারের। ক্রমশ এর মাত্রা বাড়তে থাকে, অপারগ দরিদ্র নূর হোসেন কোনভাবেই আবদুল মতিনের সাথে তার সম্পত্তি রক্ষার জন্য টিকতে পারছিল না। অবশেষে আব্দুল মোবিনের স্ত্রী মোসাম্মৎ আফসানা বেগম এর নামে প্রথমে ৫/১০/২০১৯ ইংরেজি তারিখে দুপুর অনুমান ১:০০ টায় জনবল নিয়ে অসহায় নূর হোসেনের বসতভিটার জায়গাটি জোরপূর্বক সন্ত্রাসী কায়দায় দখল নেয়ার চেষ্টা চালান বলে চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট এর আদালত চট্টগ্রামে একটি বিশেষ ডায়েরি নং ৪২২/২০১৯ এর মাধ্যমে তিনজনের বিরুদ্ধে আইনিভাবে আদালতকে অবহিত করেন নূর হোসেনের স্ত্রী খুরশিদা বেগম।

পরবর্তীতে নূর হোসেন বাদী হয়ে তার সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টা আব্দুল মোবিন সংশ্লিষ্ট রয়েছেন মর্মে মোহাম্মদ মনসুর, পিতা মরহুম আব্দুল সবুর ও মোসাম্মৎ আফসানা বেগম স্বামী আবদুল মোবিন এর বিরুদ্ধে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৪৫ ধারা মোতাবেক প্রতিপক্ষ গনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং ১৪৩১/২০১৯।

অবশেষে আব্দুল মোবিন তার সম্পত্তির সীমারেখা অতিক্রম করে নূর হোসেনের বসতভিটা অবৈধভাবে জবর দখলের চেষ্টা করলে ৯/৮/২০২০ ইংরেজি চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কে নূর হোসেন ভবন নির্মাণের নকশা ও সম্পত্তির পরিমাণ যথাযথ সঠিক আছে কিনা তা যাচাইয়ের জন্য লিখিত আবেদন জানান।
এছাড়াও জোরপূর্বক চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এর নিয়ম নীতি ও নকশার তোয়াক্কা না করেই ভবন নির্মাণ করে চলেছেন বলে অভিযোগ দায়ের করেন নূর হোসেন।

সর্বশেষ বিগত ২৮/৪/২০২১ ইংরেজি তারিখে নূর হোসেনের উপর অতর্কিত হামলা চালান তার প্রতিবেশী প্রবাসী আব্দুল মোবিন নিজে এবং বহিরাগত বেশকিছু সন্ত্রাসী প্রকৃতির ভাড়া করা লোকজন নিয়ে। এই অভিযোগ করেন নুর হোসেনের পরিবার ও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি।

এসময় তারা নূর হোসেনের বাড়ির গেট ভাঙচুর করেন এবং তার ছেলের মোটরসাইকেল মারাত্মকভাবে ভাঙচুর করেন ‌। এছাড়াও এ সময় প্রথমে সিসি ক্যামেরা ভেঙে ফেলেন আব্দুল মোবিন ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। একই সময়ে এই সব বিষয়ের জোরালো প্রতিবাদ করতে গেলে অসহায় দরিদ্র নূর হোসেনের উপর নেমে আসে আব্দুল মোবিন এর আক্রমণ। আক্রমণের সাথে সাথে নূর হোসেন তার সন্তানেরা আঘাতপ্রাপ্ত হয় বলে জানিয়েছেন নূর হোসেনের পরিবার। এসময় নূর হোসেনের মুখ ফেটে রক্তপাত ঘটায়।
সাধারণ মানুষ মনে করেন দরিদ্র পরিবারের উপর এভাবে জুলুম নির্যাতন চলতে দেয়া যায় না। বর্তমানে নূর হোসেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। অনুষ্ঠানের পরিবার থেকে আরও অভিযোগ করে বলা হয় আব্দুল মমিন ও তার লোকজন আহত নূর হোসেনকে চিকিৎসার জন্য মেডিকেলে যেতে দিতে চাইছিল না। তাদেরকে অবরুদ্ধ করে রেখেছিল। পরে তারা ৯৯৯ কল দিয়ে পুলিশের সহযোগিতা নেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে অপরাধীরা পিছু হটে যায় এবং নূর হোসেনকে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে দেন।
ঘটনার সত্যতা বিষয়ে চট্টগ্রাম চাঁদগাও থানা তদন্তকারী কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার বরাবরে ফোন করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি আরো জানান নূর হোসেনের ছেলে সাইফুদ্দিনের অভিযোগ গ্রহণ করেছেন এবং বিবাদী আব্দুল মোবিন এর পক্ষ থেকেও একটি পাল্টা অভিযোগ করা হয়। তিনি আরো বলেন পুরো বিষয়টির উপরে সঠিক তদন্তের পর এই যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।


আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

রাস্তার দুই পাশ্বে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপন উচ্ছেদ অভিযান।
প্রথম আলোর সাংবাদিক রোজিনাকে অবরুদ্ধ, হেনস্তার বিচার ও মুক্তির দাবি (সি আর এ)
আঁচলস মম কুকিং এর কর্মকর্তাদের ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় সাবেক মেয়র নাছিরের সাথে।
রিয়াজউদ্দিন ও নিউ মার্কেট এলাকায় রাস্তার দুই পাশ্বে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপন উচ্ছেদ অভিযান।
আ জ ম নাছির উদ্দিনের সাথে চট্টগ্রাম মহানগর সড়ক পরিবহণ শ্রমিক লীগ নেতৃবৃন্দের ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়।
পলাশবাড়ীতে ফেন্সিডিলসহ সুমি আটক।

আরও খবর